রাজা জিসি স্কুলের ‘কামরান ভবন’ পরিত্যক্ত ঘোষণা

প্রকাশিত: ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ, জুন ৯, ২০২১

রাজা জিসি স্কুলের ‘কামরান ভবন’ পরিত্যক্ত ঘোষণা

স্টাফ রিপোর্টার :: দুই দফা ভূমিকম্পে রাজা জিসি হাইস্কুলের ফাটল ধরা ভবন পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর (ইইডি) সিলেট। একই সাথে অপ্রতুল শ্রেণিকক্ষের চাহিদা মেটাতে পদক্ষেপ গ্রহণেরও আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১২ টার দিকে ফাটল ধরা স্কুল ভবনটি পরিদর্শনের পর শিক্ষা প্রকৌশল থেকে ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়।

ইইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল হাকিম জানান, ভূমিকম্পের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনায় ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এ ভবনে কোন শিক্ষা কার্যক্রম না চালাতে সংশ্লিষ্টদের চিঠি দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষা কার্যক্রম নির্বিঘ্নে চালানের স্বার্থে প্রতিষ্ঠানটিতে নতুন ভবন নির্মাণের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চাহিদা পাঠানো হয়েছে।

তিনি জানান, ‘মূল ভবনটি স্ট্রাকচার বেশ পুরনো। তাই এটি ভূমিকম্প সহনীয় করে ভিত্তি তৈরি করা হয়নি। এজন্য ভবনটিতে ফাটল দেখা দিয়েছে। তাই এটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।’

শ্রেণিকক্ষের চাহিদা মিটাতে ৬ তলা নতুন একটি ভবন নির্মাণ করা হবে জানিয়ে এ প্রকৌশলী বলেন, ‘বর্তমানে রাজা জিসি স্কুলের জন্য একতলা একটি ভবনের বাজেট বরাদ্দ আছে। এ ভবনটির বরাদ্দ বাড়িয়ে ৬ তলায় উন্নীত করা হবে। একই সাথে তাদের শ্রেণিকক্ষের চাহিদা দ্রুত মেটানোর পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় ৬ টা ২৯ মিনিটে একবার এবং ৬ টা ৩০ মিনিটে একবার ভূমিকম্প হয়। কিন্তু, আবহাওয়া অফিসে একবারের ভূমিকম্পের হিসেব সংরক্ষিত হয়ে রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ৩ দশমিক ৮ দেখা গেছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। সিলেটের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী জানান, ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ঢাকা থেকে ১৮৮ কিলোমিটার। এটি সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার জালালপুর বলেও জানান তিনি ।

অপরদিকে, ভূমিকম্পে রাজা জিসি স্কুলে ফাটল ধরার খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক পরিদর্শন করেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এ সময় ভূমিকম্পের ঝুঁকিপূর্ণ সিলেটে আগামীর জন্য কি পদক্ষেপ নেওয়া হবে জানতাই চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আজ বুধবার আমি সিলেটের সকল শ্রেণির মানুষদের নিয়ে বসব। ইতোমধ্যে আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এবং শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সাথে কথা বলেছি। তাদের সমন্বয়ে একটি টিম গঠন করে নগরের সকল জায়গায় জরিপ করা হবে। এর পর সকল ঝুঁকিপূর্ণ ভবন চিহ্নিত করা হবে। কারণ বিশেষজ্ঞরা আগেই আমাদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন। তারা ১০ দিন সতর্ক থাকার পরামর্শ দিলেও সোমবার ৯ দিনের দিনই ফের দুইবার ভূমিকম্প হয়।

রাজা জিসি হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোহা. আবদুল মুমিত জানান, ১৮৮৬ সালে রাজা জিসি হাই স্কুল স্থাপিত হয়। এ বিদ্যালয়ে ২০০৬ সালে একটি ভবন নির্মিত হয়। এসময় ওই ভবনের নিচ তলা পাকাকরণ হয়। আর ২০১৭ সালের দিকে দ্বিতীয় তলার কাজ সম্পন্ন হয়। তবে ২০১৯ সালে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ভবনটি হস্তান্তর করে।

প্রসঙ্গত, সিলেটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ রাজা জিসি উচ্চ বিদ্যালয়। শতবর্ষি এই বিদ্যালয়ে ১৮৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ফাটল ধরা ভবনটি সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র প্রয়াত বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের নামে নির্মিত। ২০০৬ সালে এই ভবন নির্মিত হয়।

শেয়ার করুন…………………………………

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ